Skip to content

আমির হামজা জন্ম, বয়স, পেশা, শিক্ষা, বিবাহ ও পারিবারিক জীবন Biography of amir hamza

  • by

                     বিসমিল্লাহির রহমানির রাহীম

আমির হামজার বাংলাদেশের প্রখ্যাত আলেমেদ্বীন তারুণ্যের অহংকার মুফতি আমির হামজা বাংলাদেশের আলেমদের মধ্যে একজন দেশ সেরা বরেণ্য আলেমে দ্বীন তার ভক্ত বাংলাদেশের অসংখ্য শ্রোতা তার ইসলামের কথা বা শোনার জন্য অধীর আগ্রহে থাকে অসংখ্য শ্রোতা বিন্দু বিশেষ করে তার কথা শোনার জন্য অধীর আগ্রহে থাকে যুবকেরা তার জন্ম: ২৮-অক্টোবর ১৯৯২) মাওলানা মোঃ আমির হামজা কএজন ধর্মীয় আলোচক, কুষ্টিয়ায় জন্মগ্রহণ করেছেন। তাঁর পিতার নাম মোঃ রিয়াজ উদ্দিন।আর এ পুরো আটিকেল জুরে তার জীবন বৃৃত্তান্ত সম্পকে আলোচনা করা হলো —

মাওলানা আমির হামজার জীবনি:                                                     

নাম
আমির হামজা
জন্ম ২৮-অক্টোবর ১৯৯২
বয়স ২৭ বৎসর
জন্ম স্থান কুষ্টিয়া, খুলনা, বাংলাদেশ
উপ-নাম মাওলানা মোঃ আমির হামজা
পেশা ইসলামী প্রচারক
শিক্ষা কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়
কার্যকাল
২০১০-বর্তমান
উচ্চতা
৫ফুট ২ ইঞ্চি
ওজন ৫৮ কেজি

  • আমির হামজার শিক্ষা জীবন:

তিনি প্রাথমিক শিক্ষা তাঁর জেলা থেকে পেয়েছেন। হাফিজিয়া তার জেলার মর্যাদাপূর্ণ হাফিজিয়া মাদ্রাসা থেকে কুরআনের “হাফেজ” হয়ে ওঠেন। এরপরে তিনি “ইফতা” শেষ করেন এবং তার জেলার নামী কাওমী মাদ্রাসা থেকে “মুফতি” হন। পরবর্তীতে তিনি বাংলাদেশের কুষ্টিয়া জেলায় অবস্থিত বাংলাদেশের সেরা ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পান। সেখানে তিনি “আল কুরআন” শীর্ষক অনার্স এবং মাস্টার্স শেষ করেছেন। পড়াশোনা শেষে দাউই ইসলামে কাজ শুরু করেন ও এর পাশাপাশি তাফসীর শুরু করেন।

  • আমির হামজার বিবাহ ও পারিবারিক জীবন

তিনি পুরোপুরি একজন হাফেজ, মুফতি এবং মুফাসসিরে কোরআন। তিনি অত্যন্ত নম্র ও মৃদু হাসির মানুষ। পারিবারিক জীবনে তিনি তার দুই মেয়েকে সবচেয়ে বেশি ভালোবাসেন।

  • আমির হামজার মাসিক আয় তুলে ধরা হলো:

তার মাসিক আয়ের কোন সঠিক তথ্য নেই। তবে তিনি কুরআন থেকে যা কিছু পান তা দিয়েই জীবন অতিবাহিত করেন। আমির হামজা অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেল তাহজিব কেন্দ্রের বোন উদ্বেগ। এখানে উপস্থাপন করা হয়েছে জনপ্রিয় মাওলানা আমির হামজার নতুন বাংলা ওয়াজ ও সর্বশেষ ওয়াজ মাহফিল,স্টুডিও বক্তৃতা, কোরান তিলাওয়াত, ইসলামিক বই ইত্যাদি।

জনপ্রিয় মাওলানা আমির হামজা সম্পকে আপনি জানেন  কি?                                                                                                     

আপনাদের জানাতে চাই তিনি বর্তমান বাংলাদেশের আলোরন সৃষ্টিকারি মুফাসসীরে কোরআন ও অন্যতম ইসলামিক আলোচক। শৈশব থেকেই তিনি খুব মেধাবী ছিলেন। অনেকে তাকে “বাংলাদেশের দ্বিতীয় জাকির নায়েক” বলে ডাকে। কারণ তিনি তাঁর বক্তব্যে কুরআন ও হাদীসের উল্লেখ করেছেন। একজন ইসলামিক আলোচক হিসাবে তাঁর খ্যাতি বিশ্বজুড়ে পরিচিত। তিনি বাংলাদেশের বাইরে যুক্তরাষ্ট্র, সৌদি আরব, ভারত সহ অন্যান্য মুসলিম ও অমুসলিম রাষ্ট্রগুলিতে আমির হামজাকেআমন্ত্রণ করেছিলেন।                                                                             

তিনি বাংলাদেশের অনেক ইসলাম বিরোধী ব্যক্তিকে প্রত্যক্ষ সমালোচনা ও কঠোর সতর্কতা দিয়েছেন।আল্লাহর রহমতে অনেক অমুসলিম ভাই-বোন ও তাদের পরিবার ইসলাম গ্রহণ করেছেন। সে আল্লাহ ব্যতীত কাউকে ভয় করে না, ভয়ে কার কাছে মাথা নত করে না। সে ইসলামের প্রতি দৃঢ়

তাঁর কথাগুলি সুস্পষ্ট, যদিও তিনি কুষ্টিয়ার আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলেন। তিনি অত্যন্ত সাহসী কতার সাথে কথা বলেন।বক্তৃতা চলাকালীন তিনিশ্রোতাদের হাসিখুশি করে তোলে। দেশের অন্যতম ইসলামী ব্যক্তিত্ব হওয়া সত্ত্বেও তার ভিতরে কোন প্রকার অহংকার নেই। তিনি কোরআনকে সুন্দর উপায়ে আলোচনা করে শ্রোতাদের কাছে ব্যাখ্যা করেছেন।যাতে করে শ্রোতা সহজে বুঝতে পারে। বাংলাদেশের আরেক জনপ্রিয় বক্তা মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারী ও মুফতি আমির হামজার মাঝে খুব ভাল সম্পর্ক রয়েছে।

  • আমির হামজার প্রকাশিত উল্লেখযোগ্য বিবৃতি গুলি:             

  • হাশরের ময়দানে ৭৩ কাতারে কে থাকবে কোন কাতারে।
  • সাহাবীদের ঈমান।
  • নারীর উপর পুরুষের মর্যাদা ও নেককের নারীর বৈশিষ্ট।
  • পরকালের সম্বল।
  • আল্লাহর ক্ষমাপ্রাপ্ত বান্দাহ করা।
  • ঐক্যবদ্ধভাবে আল্লাহর হুকুম পালন করা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *